অসাধারণ কিছু লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া ২০২২

আমাদের দেশ বাংলাদেশ বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল দেশ৷ এর কারণে অনেকে উচ্চশিক্ষার অর্জনের পরও কাঙক্ষিত চাকরির সু্যোগ পাচ্ছে না৷ ফলে দেশের সিংঘভাগ যুবক বেকার সমস্যা ভুগছেন। এর থেকে পরিত্রাণ এর একমাত্র উপায় হল ব্যবসা৷ চাকরির পিছনে না দৌড়িয়ে ব্যবসার মাধ্যমে মানুষ সফলতার চরম শিখর এ পৌঁছাতে পারে৷ ব্যবসার মাধ্যমে নিজে সাবলম্বী হওয়ার পাশাপাশি মানুষ এর জন্য নতুন কর্মক্ষেত্র ও সৃষ্টি করা সম্ভব৷ তাই ব্যবসাকে নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে গড়ে তোলা উচিৎ৷

ব্যবসা শুরু করার আগে যেই এলাকায় বা স্থানে ব্যবসা শুরু করবেন সেখানকার পরিস্থিতি, চাহিদা, কোন ব্যবসা সেখানে উপযোগী এসব বিষয় নিয়ে চিন্তা করা উচিৎ। ভবিষ্যৎ এ সেই ব্যবসার চাহিদা কিরকম থাকবে বা ব্যবসার পরিসর বাড়ানো যাবে কি না এসব বিষয় ও খেয়াল রাখতে হবে৷ তাই আজ আমি আপনাদের এমন কিছু ব্যবসার আইডিয়া দিব যা যুগ উপযোগী এবং ভবিষ্যৎ এও এই লাভজনক  ব্যবসার আইডিয়া গুলোর ব্যাপক চাহিদা থাকবে৷ এখান থেকে আপনার পারিপার্শ্বিক অবস্থার উপর ভিত্তি করে যেকোনো একটি আইডিয়া নিয়ে ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

লাভজনক ব্যবসা আইডিয়া

আমি আজ আপনাদের যে লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া এর কথা বলব সেসব ব্যবসা শুরু করে সাবলম্বী হতে পারবেন৷ শুধু তাই ন্য এসব ব্যবসার  চাহিদা ও পরিধি দিন দিন বাড়ছে। তো চলুন জেনে নেয়া যাক এসব লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া।

কফি শপের ব্যবসা

বর্তমান এ কফি এর চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। বিভিন্ন মিটিং বা অবসর সময় মানুষ কফি খেতে খুব পছন্দ করে। এছাড়াও ছেলেমেয়েরা কফিশপ এ আড্ডা দিতে খুব পছন্দ করে। এর কারণে কফি শপ এ কেনাবেচা ভালই হয়৷ আর এই কফি শপ মেইনটেইন করাও অনেক সহজ। এই ব্যবসায় মূলধন খুব কম এবং লাভ ও বেশি। তবে এই কফি শপ গুলো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালত বা যেখানে লোক সমাগম বেশি সেখানে স্থাপন করা উচিৎ। এতে ক্রেতা সমাগম বেশি হয়৷

কফি শপ এর ব্যবসা ২০-২৫ হাজার টাকা হলেই শুরু করা সম্ভব। এই লাভজনক ব্যবসার আইডিয়াটি আপনি কাজে লাগাতে পারে এবং সহজেই ঘরে বসে ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারেন।

রড সিমেন্ট এর ব্যবসা

বর্তমান এ আমাদের দেশ উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় যুক্ত  হতে যাচ্ছে। এতে করে দেশের অবকাঠামোগত উন্নয়ন প্রতিনিয়ত হয়ে আসছে৷ এতে বাজার এ রড -সিমেন্ট ও নির্মাণ সামগ্রির চাহিদা ব্যপক। আপনার যদি মূলধন  বেশি থাকে তবে আপনি এ ব্যবসা অনায়াসে করতে পারেন। এই ব্যবসার আইডিয়া অনেক লাভজনক।  তাই আপনার উচিৎ হবে এই ব্যবস্যায় বিনিয়োগ করা৷ প্রায় ২৫-৩০ লক্ষ টাকা থাকলে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

হ্যাচারি ব্যবসা‌

হ্যাচারি হল একটি কৃত্রিম জলাশয় যেখানে মাছের পোনা চাষ করা হয়৷ এটি একটি লাভজনক ব্যবসা ৷ এই ব্যবসায় আপনারা মাছের পোনা চাষ করে তা বিক্রি করতে পারেন৷ এই ব্যবসার আইডিয়াটিতে কাজ শুরু করার আগে এ বিষয় এ জ্ঞান অর্জন করা প্রয়োজন৷ মৎস্য অধিদপ্তর বা জেলার কৃষি কর্মকর্তার কাছে পরার্মশ নিয়ে আপনারা এ ব্যবসা কাজে লাগাতে পারেন।

অনেকেই হ্যাচারি বা মাছ চাষ করে ভালো পরিমাণ মুনাফা অর্জন করছেন। বর্তমান সময়ে লাভজনক ব্যবসার মধ্যে মাছ চাষ বা হ্যাচারির ব্যবসা অন্যতম।

জুয়েলারি ব্যবসা

জুয়েলারি ব্যবসা ও লাভজনক ব্যবসা গুলোর মধ্যে অন্যতম। এর চাহিদাও প্রচুর।দিন দিন এই ব্যবসার কদর বেরেই চলেছে৷ এই ব্যবসার ভবিষ্যৎ ও অনেক উজ্জ্বল। আপনার কাছে ২৫-৩০ লাখ টাকা থাকলে এই ব্যবসা নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে স্বল্প পরিসরে শুরু করতে পারেন।

প্লাস্টিকের ব্যবসা

প্লাস্টিকের পণ্য প্রক্রিয়াজাত করাও একটি লাভ জনক ব্যবসা। দিন দিন প্লাস্টিকের পন্যের চাহিদা বাড়ছে। ছোট ছোট জিনিস থেকে শুরু করে চেয়ার, টেবিল,আসবাবপত্র, বালতি, দরজা ইত্যাদি নানা জিনিস প্লাস্টিক থেকে তৈরি হচ্ছে। তাই পুরাতন প্লাস্টিকের জিনিস সংগ্রহ করে তা প্রক্রিয়াজাত করলে অনেক লাভবান হওয়া সম্ভব। আর এ ব্যবসায় মুলধন ও কম লাগে। তাই আপনারা লাভজনক ব্যবসা হিসেবে এই ব্যবসাও শুরু করতে পারেন

ইলেকট্রিক জিনিসের ব্যবসা

এটি একটি অত্যন্ত  লাভজনক ব্যবসা। ইলেক্ট্রিকাল জিনিস এর চাহিদা প্রচুর। এর চাহিদা দিন দিন বেরেই চলেছে। দেশের অবকাঠামোগত উন্নয়ন এর ফলে এই ইলেকট্রিক জিনিস গুলোর চাহিদা বাড়ছে। তাই এই ব্যবসা আপনাদের জন্য অনেক লাভজনক হতে পারে৷ এই ব্যবসা শুরু করতে হলে ৩৫-৪০ হাজার টাকার প্রয়োজন হতে পারে৷ আর এই ব্যবসায় লাভবান হতে হলে কিছু ইলেক্ট্রিশিয়ানদের সাথে যোগাযোগ রাখতে হবে৷ তবেই এই ব্যবসায় সফল

ক্রোকারিজ ব্যবসা

ক্রোকারিজ ব্যবসা হল চিনামাটি বা প্লাস্টিক এর থালাবাসন, জিনিসপত্র ইত্যাদি এর ব্যবসা৷ এ ব্যবসাও অনেক লাভজনক৷ এই ব্যবসা শুরু করতে হলে আপনাকে মানুষ এর চাহিদা সম্পর্কে জানতে হবে৷ যুগ উপযোগী জিনিসপত্র রাখলে এই ব্যবসায় সফল হওয়া সম্ভব৷ এই লাভজনক ব্যবসা শুরু কর‍তে হলে ৪-৫ লাখ টাকার মতো প্র‍য়োজন হতে পারে৷

ফার্মেসির ব্যবসা

এই ব্যবসা প্রাচীন কাল থেকেই লাভজনক ব্যবসার তালিকায় রয়েছে । এই ব্যবসা শুরু করতে হলে আপনাকে প্রথম এ ঔষুধ সম্পর্কে যথেষ্ট ধারণা রাখতে হবে৷ এছাড়াও এ ব্যবসা শুরু করতে হলে আপনাকে স্থানীয় সরকার এর কাছে লাইসেন্স নিতে হবে৷ এই ব্যবসা কোন মেডিকেল বা ক্লিনিক এর আশেপাশে শুরু করলে লাভবান হওয়া যায়। এই লাভজনক ব্যবসা শুরু করতে ১০-১৫ লাখ টাকা প্রয়োজন হতে পারে৷

কেমন লাগল আপনার এই ফার্মেসি ব্যবসার আইডিয়াটি? অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন ইউনিক মানের একটি ব্যবসার আইডিয়া।

অনলাইন কেনা বেচার ব্যবসা

বর্তমান এ প্রযুক্তির উন্নয়ন এর ফলে ব্যবসার ক্ষেত্রে নতুনদ্বার উন্মোচন হয়েছে। অনলাইন এ কেনাবেচা এখন খুবই জনপ্রিয়। মানুষ অনলাইন এ কেনাবেচা করতে বেশি পছন্দ করে। তাই লাভজনক ব্যবসা হিসেবে এটি শুরু করা যেতে পারে। এজন্য আপনাকে কেনাবেচার মাধ্যম হিসেবে ফেসবুক গ্রুপ বা পেজ,ইনস্টাগ্রাম,ইউটিউব ওয়েবসাইট ইত্যাদি ব্যবহার করতে হবে। এই লাভজনক ব্যবসার  শুরু করতে ৫-৬ লাখ টাকা হলেই যথেষ্ট। তবে এই ব্যবসায় যথেষ্ট প্রচারণা প্রযোজন।

পার্লার ব্যবসা

বর্তমান মানুষ নিজের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধিতে যথেষ্ট সচেতন। তারা যুগের সাথে মানিয়ে নিতে নিজেকে আকর্ষণীয় করে তুলতে চায়৷ বিশেষ করে মেয়েরা। তাই পার্লার ব্যবসা বর্তমান এ অনেক লাভজনক ব্যবসা। এই ব্যবসার শুরু করতে হলে আপনাকে কিছু বিউটিশিয়ান এ নিয়োগ দিতে হবে। অথবা এই বিষয়ে আপনারাও প্রশিক্ষণ নিতে পারেন।আর এই ব্যবসায় মুলধন ও কম প্রয়োজন৷ ৩-৪ লাখ টাকা হলে এই ব্যবসা স্বপ্ল পরিসরে শুরু করা সম্ভব৷ চাইলে আপনারা এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া স্টোরি

এই আর্টিকেলটিকে সংক্ষেপে স্টোরি আকারেও দেখতে পারেন ও তা আপনার বন্ধু-বান্ধবের সাথেও শেয়ার করতে পারে।

শেষ কথা

উপরে যেসব ব্যবসার আইডিয়ার কথা বলা হল সব ব্যবসাই লাভজনক। তবে কোন ব্যবসার আইডিয়াকে  প্রতিষ্ঠিত করতে হলে প্রয়োজন কঠোর  প্রচেষ্টা ও অধ্যাবসায়। জীবন এ প্রতিষ্ঠিত হতে হলে শুধু চাকরির পিছনে না দৌড়িয়ে কোন ব্যবসার আইডিয়াকে টার্গেট করে কাজ শুরু করা উচিৎ । এতে নিজে সাবলম্বী হওয়ার পাশাপাশি অন্যের ও কর্মসংস্থান এর সৃষ্টি হয়। যা বেকার সমস্যা দূরিকরণ এ যথেষ্ট ভুমিকা রাখে৷ তাই নিজেকে উদ্যক্তা হিসেবে গড়ে তোলা প্রয়োজন৷  আমাদের এই ব্যবসার আইডিয়া গুলো আপনাদের ভালো লেগে থাকলে বা ভবিস্যৎ এ আরও এরুপ দরকারী তথ্য পেতে নিয়মিত ওয়েবসাইটটি ভিজিট করতে পারেন।

Leave a Comment